● সোমবার, জুলাই 22, 2024 | 04:26 অপরাহ্ন

কঠিন সিদ্ধান্ত

বাচ্চু আর বাদশাহ দুই ভাই। পড়া লেখায় খুবই অমনোযোগী। তারা লেখা পড়া করবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাদের বাবা না ছোড় বান্দাহ। বার বার হাউজ টিচার বদলাতে হয় তাদের যন্ত্রনায়। তাই তাদের জন্য হাউজ টিচার রাখতে রাখতে অস্থির তাদের বাবা। শেষমেশ একজন শিক্ষক রাখা হলো; যিনি তাদেরকে পড়াতে পারবে বলে আশ্বাস দিল। বাবা ছেলেদের জন্য এই টিচারকে পড়াতে অনুমতি দিলেন। শিক্ষক পড়াতে এসে প্রথম দিনেই তাদেরকে বললেন, তোমরা আসলে কি করতে চাও আমাকে একটু বল, আমি তোমাদের সাথে আছি। তোমাদের সাথে আমার কোন অমিল হবে না। তারা ভাবলো যাই হউক মনের মতো একজন স্যার পাওয়া গেল। মনের কথ্ াখুলে বলি। ছাত্ররা বলল, স্যার আমরা আসলে খেলা-ধুলা পছন্দ করি; তাই আমরা পড়া লেখা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। স্যার বললেন তাহলে চল আমরা খেলতে যাই। স্যার তাদের নিয়ে খেলতে রওয়ানা দিয়েছে। ছেলেদের বাবা স্যারের কারবারে হতবাক কি করছে। স্যার তাদের বাবাকে চোখে টিপ্পনি কেটে চলে গেল। মাঠে গিয়ে তিনজনে মিলে বেশ খেলা করলো । একসময় স্যার বলল চল আমরা একটু জিরিয়ে নেই। আমগাছের গোড়ায় বসে তারা আরাম করছে। গাছে ছিল তিনটি পাখি। স্যার বাচ্চুকে বলল বাচ্চু বলতো ওখানে কয়টি পাখি আছে? আর ওখান থেকে যদি একটি উড়ে যায় তাহলে কয়টি থাকবে। বাচ্চু একটু নিরব হয়ে ভাবছে। বাদশা বাচ্চুকে ডাক দিয়ে বলছে, বাচ্চু বলিস না স্যার আমাদেরকে অংক পড়াচ্ছে

উপদেশ:
নবী আঃ এর জমানায় আবুজেহেল সহ আরও কিছু লোক এই সিদ্ধান্ত নিয়ে ছিল যে মুহাম্মদ আমাদের যাই বলুক আমরা কিছু মানবো না। আল্লাহ তাদের সর্ম্পেকেই বলেছেন খাতামাল্লাহু আলা কুলূবিহিম…….. তাদের কলবে আমি ছিপি এঁটে দিয়েছি। বর্তমান সময়েও কিছু লোক আলেমদেরকে বাদ দিয়ে দিয়েছে । আলেমদের কোন কথাই শোনবে না বলেই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে। তাদের এই আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত তাদেরকে কোথায় নিয়ে পৌঁছায় আল্লাহই ভালো জানেন। এভাবে কেউ সিদ্ধান্ত নিলে হেদায়েতের পথ পাওয়া বড়্ই কঠিন।

এই সম্পর্কিত আরও

কাবার চাবি
বিস্তারিত...
হজ-2025
বিস্তারিত...
খিলাফত
বিস্তারিত...
office-course
বিস্তারিত...
আবুল কালাম
বিস্তারিত...
সৌদি আরবে ঈদের তারিখ ঘোষণা
বিস্তারিত...