1. faysalislam405@gmail.com : ফয়সাল ইসলাম : ফয়সাল ইসলাম
  2. tajul.islam.jalaly@gmail.com : তাজুল ইসলাম জালালি : তাজুল ইসলাম জালালি
  3. marufshakhawat549@gmail.com : মারুফ হোসেন : মারুফ হোসেন
  4. sheikhmustakikmustak@gmail.com : Sheikh Mustakim Mustak : Sheikh Mustakim Mustak
  5. najmulnayeem5@gmail.com : নাজমুল নাঈম : নাজমুল নাঈম
  6. rj.black.privateboy@gmail.com : rjblack :
  7. saddam.samad.24@gmail.com : সাদ্দাম হোসাইন : সাদ্দাম হোসাইন
  8. samirahmehd1997@gmail.com : Samir Ahmed : Samir Ahmed
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৬ অপরাহ্ন

খাবারের কষ্টে ত্রাণের আশায় ৩৩৩ নম্বরে ফোন, ভাগ্যে জুটল পিটুনি!

সাদ্দাম হোসাইন
  • প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ২৯ জুন, ২০২১
  • ৮০ বার পড়া হয়েছে
Day laborer Md. Farooq.

করোনাকালে সরকার ঘোষিত লকডাউনে কাজ করতে পারছেনা। এদিকে ঘরে খাবার নেই। ত্রাণ সহায়তা পাওয়া যাবে এই আশায় মো. ফারুক নামে এক দিনমজুর ৩৩৩ নম্বরে ফোন করেছিলেন। কিন্তু খাদ্য সহায়তার পরিবর্তে তার ভাগ্যে জুটেছে পিটুনি! ইউনিয়ন পরিষদ থেকে খালি হাতে ফিরিয়ে দেওয়া এবং রাস্তায় মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ফারুক। পরে টাকার অভাবে চিকিৎসাও করাতে পারেননি বলে জানান তিনি।

ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার (২৫ জুন) বিকেলে উপজেলার লর্ড হার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ফাতেমাবাদ গ্রামে এ। তবে সোমবার (২৮ জুন) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে।

মারধরের শিকার মো. ফারুক বলেন, ‘আমি একজন দিনমজুর। করোনার কারণে অন্য কোনো কাজও নেই। তাই খুব অভাব অনটনের মধ্যে দিন কাটছে। আমার এই কষ্ট দেখে প্রতিবেশী মো. আলমের মেয়ে রুমা বেগম শুক্রবার (২৫ জুন) ৩৩৩ নম্বরে কল করে আমার জন্য খাদ্য সহায়তা চান।’

তিনি আরও বলেন, ‘ওইদিন বিকেলে লর্ড হার্ডিঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ থেকে আমাকে পরিষদে আসতে বলে। কিন্তু ইউনিয়ন পরিষদে গেলে তাকে চাল দেয়া হয়নি। চাল না পেয়ে যখন বাড়ি ফিরছিলাম তখন কয়েকজন এসে আমাকে ৩৩৩ নম্বরে কল কেনো দিয়েছি এটা বলে মারধর শুরু করে। পরে আহত অবস্থায় আমি বাড়ি ফিরে আসি। টাকার অভাবে চিকিৎসা নিতে পারিনি।’

তবে লর্ড হার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কাসেম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘গত ১০-১৫ দিন আগে ফারুককে ৮০ কেজি জেলে কার্ডের চাল দেয়া হয়েছে। তাকে আরও খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে।’

মারধরের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ফারুককে আমি তো দূরের কথা কেউ শাসায়ওনি। আর তাকে মারধরের কোনো প্রশ্নই আসে না। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে সামনে রেখে ফারুককে দিয়ে কেউ আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য ষড়যন্ত্র করছেন।’

লালমোহন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আল নোমান বলেন, ‘আমাদের কাছে যখন ফারুকের খাদ্য সহায়তার এসএমএস আসে তখন আমি চেয়ারম্যানকে সহায়তার জন্য বলি। আজ বিকেলে শুনেছি ৩৩৩ নম্বরে খাদ্য সহায়তা চাওয়া তাকে মারধর করা হয়েছে। এটা খুবই দুঃখজনক।’

তিনি আরো বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি ফারুকের সঙ্গে কথা বলব। বিষয়টি আমি নিজেই তদন্ত করব।’

বিজ্ঞাপন





শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও
© ২০২১ - সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । হক কথা ২৪.নেট
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )