● সোমবার, জুলাই 22, 2024 | 05:31 অপরাহ্ন

জিলহজ্ব মাসের গুরুত্ব

জিলহজ্ব মাসের গুরুত্ব

চাঁদ দেখার উপর ভিত্তি করে আরবি মাসের গণনা শুরু হয়। মহান আল্লাহ্ সুবহানাহু তা’আলা পবিত্র কুরআনে মোট ১২টি মাসের মধ্যে ৪ টি মাসকে সম্মানিত মাস হিসেবে উল্লেখ করেছেন। এর মধ্যে অন্যতম হলো জিলহজ্ব মাস। 

পুরো জিলহজ্ব মাসই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু প্রথম ১০ দিনের গুরুত্ব ও ফজিলত অপরিসীম। পবিত্র কুরআনের সূরায়ে ফজরের শুরুতে আল্লাহ্ তায়ালা বলেন- “কসম প্রভাতের এবং ১০ রাতের।” (সুরা : ফজর, আয়াত : ১-২)

এখানে যে ১০ রাতের কথা বলা হয়েছে, তা কোন কোন তাফসিরকারক সূরা ফজরের এ আয়াতের মাধ্যমে জিলহজ্ব মাসের প্রথম ১০ রাতকে বুঝিয়েছেন বলে মনে করেন। (তাফসিরে ইবনে কাসির, চতুর্থ খণ্ড, পৃষ্ঠা ৫৩৫)। 

হাদিস শরিফে জিলহজ্ব মাসের প্রথম ১০ দিন সম্পর্কে বলা হয়েছে। রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ আল্লাহ্ তা’আলার নিকট জিলহজ্বের প্রথম ১০ দিনের ইবাদত অপেক্ষা অধিক পছন্দনীয় আর কোন ইবাদত নেই। [সহিহ্ বুখারী খণ্ড ২, ৪৫৭]

এই ১০ দিনের মধ্যে শেষের দু’দিন হলো সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যাকে হাদিসের পরিভাষায় ‘ইয়াওমে আরাফা’ ও ‘ইয়াওমে নাহর’ বলা হয়। এ ছাড়াও দুটি ইবাদত এ মাসের প্রথম দশককে বৈশিষ্ট্য মণ্ডিত করে তোলে। যে ইবাদত জিলহজ্ব মাস ছাড়া অন্য কোনো মাসে আদায় করা করা যায় না-

১. হজ্ব 
২. কুরবানি।

এই সম্পর্কিত আরও

কাবার চাবি
বিস্তারিত...
হজ-2025
বিস্তারিত...
খিলাফত
বিস্তারিত...
office-course
বিস্তারিত...
আবুল কালাম
বিস্তারিত...
সৌদি আরবে ঈদের তারিখ ঘোষণা
বিস্তারিত...