● সোমবার, জুলাই 22, 2024 | 06:17 অপরাহ্ন

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি

দ্রুত শব্দটি কি দ্রুতই সরছে না?

করোনা মহামারির মধ্যে বন্ধ হয়ে যাওয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দ্রুত খুলে দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। করোনা ভাইরাসের প্রকোপ কিছুটা কমে আসায় দেশের সব স্কুল-কলেজ খুব দ্রুতই খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা হচ্ছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘এরই মধ্যে আমি স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি। সেই ব্যবস্থাও নেওয়া হচ্ছে। শিক্ষকদের টিকাও দেওয়া হয়েছে। শিক্ষকদের পাশাপাশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যারা কর্মরত আছেন তাদের পরিবারের সদস্যদেরও টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

এখানে এদেশের কোটি শিক্ষার্থীর মনে এখন শুধু একটাই প্রশ্ন। সেটা হলো এই যে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ব্যক্তি এসে আমাদের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে একটা বার্তা দিয়ে যায় ‘খুব দ্রুতই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হচ্ছে।’ এই একই কথা আজ শিক্ষা মন্ত্রী বললো তো কাল শিক্ষা উপমন্ত্রী বললো, কাল তিনি বললো তো পরশু আরেকজন বললো। এভাবে যত দিন যায় ততই ওই একই বাক্য শুনতে পাই। তারা বুঝতে পারছেনা যে এই একই কথা শুনতে শুনতে আমরা শিক্ষার্থীরা এখন ক্লান্ত হয়ে পড়েছি। এই দ্রুত কি আর শেষ হবে না? এই দ্রুত কি দ্রুতই সরছে না?

ভ্যাকসিনের স্টক শেষ হওয়ার পর শিক্ষামন্ত্রী গত মে মাসের ২৬ তারিখ বলেন, ১৩ জুন থেকে স্কুল-কলেজ খোলা হবে। তার ৩ দিন পর ৩০ মে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের করোনা পরিস্থিতি অনুকূল না থাকলে ১৩ জুন থেকে স্কুল-কলেজ খোলা হবে না।’ আবার শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ৫ শতাংশ বা তার কমে সংক্রমণের হার না নামা পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা স্বাস্থ্যসম্মত নয়। অন্যদিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সকল শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে। আবার প্রায় প্রতিদিনই কারো না কারো মুখে শোনা যায়, দ্রুতই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার চিন্তা-ভাবনা রয়েছে। এই দ্রুত শেষ হবে কবে? প্রশ্ন এদেশের কোটি শিক্ষার্থীর।

কিন্তু এভাবে একের পর এক তারিখ দিয়ে, একের পর এক আশ্বাস দিয়ে, প্রতিদিনই একই কথা ‘খুব দ্রুতই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হচ্ছে’ বলে আমাদের শিক্ষার্থীদের মানসিক চাপে ফেলে দেওয়া হচ্ছে। এতে অনেক শিক্ষার্থীর ব্যক্তি বা পারিবারিকভাবে বিভিন্ন রকম সমস্যা তৈরি হচ্ছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা এমন এক পর্যায়ে এসেছে যে এখন প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার আন্দোলন দেখা যায়। আর এসব আন্দোলন ঠেকানোর জন্য দ্রুতই খুলে দেওয়া হবে এই কথা শুনলে মনে হয় ছোট্ট শিশুকে মায়ের কোলে শুইয়ে বলা ‘সোনা কান্দেনা ঘুমাও’ ওই বুলির মতো। খুব দ্রুতই আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে দিন। যারা ইতিমধ্যে শিক্ষা জীবন থেকে ঝরে পরেছে আর যাদের ঝরে পড়ার উপক্রম হচ্ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিয়ে তাদের ও আমাদের জীবন বাঁচান। আর দ্রুত শব্দটিকে দ্রুত সরিয়ে দিয়ে আমাদের মানসিক চাপ থেকে রক্ষা করুন।

এই সম্পর্কিত আরও

কাবার চাবি
বিস্তারিত...
হজ-2025
বিস্তারিত...
খিলাফত
বিস্তারিত...
office-course
বিস্তারিত...
আবুল কালাম
বিস্তারিত...
সৌদি আরবে ঈদের তারিখ ঘোষণা
বিস্তারিত...