1. faysalislam405@gmail.com : ফয়সাল ইসলাম : ফয়সাল ইসলাম
  2. tajul.islam.jalaly@gmail.com : তাজুল ইসলাম জালালি : তাজুল ইসলাম জালালি
  3. marufshakhawat549@gmail.com : মারুফ হোসেন : মারুফ হোসেন
  4. sheikhmustakikmustak@gmail.com : Sheikh Mustakim Mustak : Sheikh Mustakim Mustak
  5. najmulnayeem5@gmail.com : নাজমুল নাঈম : নাজমুল নাঈম
  6. rj.black.privateboy@gmail.com : rjblack :
  7. saddam.samad.24@gmail.com : সাদ্দাম হোসাইন : সাদ্দাম হোসাইন
  8. samirahmehd1997@gmail.com : Samir Ahmed : Samir Ahmed
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০২ পূর্বাহ্ন

পরিবেশ দূষণরোধে করণীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১
  • ৪৬ বার পড়া হয়েছে
Pollution

আমাদের পরিবেশ রক্ষার দায়িত্ব আমাদেরই। পরিবেশ দূষণের ভয়াবহতা সম্পর্কে গণসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে এবং এ লক্ষ্যে গণমাধ্যম প্রচার-প্রসারণা চালাতে হবে। পতিত ও বাড়ি ঘরের আশেপাশে ব্যাপক বনায়ন ঘটাতে হবে। সৌরশক্তি ও পানি বিদ্যুতের ব্যবহারকে বহুমুখী করতে হবে। বৃক্ষ নিধন ও ভূমিক্ষয় রোধ করতে হবে। শিল্প-কারখানা ও গৃহস্থালীর বর্জ্য পরিশোধনের মাধ্যমে নির্দিষ্ট স্থানে ফেলতে হবে। বর্জ্য থেকে সংগৃহীত গ্যাস জ্বালানি হিসেবে এবং পরিত্যক্ত পদার্থকে সার হিসেবে ব্যবহার করতে হবে। কৃষিক্ষেত্রে রাসায়নিক সারের ব্যবহার যতটা সম্ভব কমিয়ে আনতে হবে এবং উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে জৈব সার ব্যবহার করতে হবে। কীটনাশক ব্যবহারের পরিমাণ কমিয়ে পরিবেশ সম্মত কৃষি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সর্বোপরি পরিবেশ দূষণ প্রতিরোধের কাজকে রাজনৈতিক আন্দোলনে পরিণত করতে হবে। শিল্প-কারখানাগুলো আবাসিক এলাকা থেকে দূরে সুপরিকল্পিতভাবে স্থাপন করতে হবে। শিল্প এবং যানবাহনে ত্রুটিপূর্ণ যন্ত্রাংশ ব্যবহার রোধ করতে হবে। বায়ু দূষণ মুক্ত বিকল্প জ্বালানি ব্যবহার করতে হবে। পাশাপাশি জনসংখ্যা বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ, শিক্ষার হার বৃদ্ধি করতে হবে। উপকূল অঞ্চলে বাঁধ নির্মাণ করে তাতে বনায়ন করতে হবে। সরকারী উদ্যোগের পাশাপাশি বেসরকারী পর্যায়েও পরিবেশ উন্নয়নে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। এ লক্ষ্যে নিম্নোক্ত পদক্ষেপগুলো গ্রহণ করা যায়:

১. কলকারখানার রাসায়নিক বর্জ্য শোধনের পর নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলা।

২. পরিবেশ সংরক্ষণে পরিবেশ বন্ধু গাছ বেশী বেশী লাগানো।

৩. যেখানে-সেখানে ময়লা-আবর্জনা না ফেলা।

৪. পানি, গ্যাস, বিদ্যুৎ সব ধরনের সম্পদের ব্যবহারে মিতব্যয়ী হওয়া।

৫. সকল ধরনের ক্ষতিকর সিনথেটিক বর্জন করা।

৬. কাঠ, কয়লা, তেল প্রভৃতি যা পরিবেশ দূষণ ঘটায়, এগুলো কম ব্যবহার করা।

৭. কলকারখানা বাড়িঘরে দূষণকারী প্রযুক্তির ব্যবহার কমানো।

পরিবেশ সংরক্ষণের দায়িত্ব কেবল সরকার বা বিশেষ কোন সংস্থার ওপর ছেড়ে দিলে চলবে না। যারা অজ্ঞতাবশত বা অতি মুনাফার লোভে পরিবেশের ক্ষতি করে চলেছেন তাদের মাঝে পরিবেশ সচেতনতা সৃষ্টি এবং আইনের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।

বিজ্ঞাপন





শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও
© ২০২১ - সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । হক কথা ২৪.নেট
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )