1. faysalislam405@gmail.com : ফয়সাল ইসলাম : ফয়সাল ইসলাম
  2. tajul.islam.jalaly@gmail.com : তাজুল ইসলাম জালালি : তাজুল ইসলাম জালালি
  3. marufshakhawat549@gmail.com : মারুফ হোসেন : মারুফ হোসেন
  4. sheikhmustakikmustak@gmail.com : Sheikh Mustakim Mustak : Sheikh Mustakim Mustak
  5. najmulnayeem5@gmail.com : নাজমুল নাঈম : নাজমুল নাঈম
  6. rj.black.privateboy@gmail.com : rjblack :
  7. saddam.samad.24@gmail.com : সাদ্দাম হোসাইন : সাদ্দাম হোসাইন
  8. samirahmehd1997@gmail.com : Samir Ahmed : Samir Ahmed
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩২ অপরাহ্ন

পৃথিবীতেই আছে ‘নরকের দরজা’ জ্বলছে ৫০ বছর ধরে

সাদ্দাম হোসাইন
  • প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৪৬ বার পড়া হয়েছে
পৃথিবীতেই আছে ‘নরকের দরজা’
পৃথিবীতেই আছে ‘নরকের দরজা’

জন্ম থেকেই আমরা সবাই নরকের কথা শুনে আসছি যাকে বলা হয় দোযখ, জাহান্নাম। তবে সেখানে যেতে চাই না কেউই। কারণ সেখানে মানুষের পাপের শাস্তি হয়। কিন্তু আপনি যদি ভূপর্যটক হন, তাহলে সম্ভব হলে নরকের দরজায় অবশ্যই ঘুরে আসবেন। হলফ করে বলা যায়, নরকের দরজার কাছে গিয়ে আপনি মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে যাবেন। তবে আপনারা যেই নরকের কথা ভাবছেন এটা সেই নরক নয়।

নরকের দরজা। এই নামেই পৃথিবী বিখ্যাত তুর্কমেনিস্তানের দরওয়াজা শহরের এই প্রাকৃতিক গ্যাসক্ষেত্র। অর্ধ শতাব্দী ধরে অগ্নিমুখটি অনবরত জ্বলছে বলে একে নরকের দরজা (The Gates of Hell ) বলা হয়। কারাকুম মরুভূমিতে অবস্থিত অগ্নিমুখটির ব্যাস ২২৬ ফুট ও গর্ত ৯৮ ফুট দীর্ঘ। তুর্কমেনিস্তানের রাজধানী আশগাবাত থেকে ২৬০ কিলোমিটার দূরে আছে দারভাজা গ্রাম। এই গ্রাম খনিজ তেল ও প্রাকৃতিক গ্যাসের ভাণ্ডার হিসেবে পরিচিত। এখানেই রাশিয়ার অনুসন্ধানকারীরা ১৯৭১ সালে আবিষ্কার করেছিলেন একটি খনি।

প্রথমে তারা মনে করেছিল এটি একটি তেল ক্ষেত্র। তাই ড্রিলিং মেশিন দিয়ে তেল উত্তোলনের জন্য সেখানে ক্যাম্প স্থাপন করবে। কিন্তু পরে তারা সেখান থেকে বিষাক্ত গ্যাস বের হতে দেখে। গ্যাস অনুসন্ধানের সময় অনুসন্ধানকারীরা গ্যাসবহুল গুহার মধ্যে মৃদু স্পর্শ করলে দুর্ঘটনাক্রমে মাটি ধসে পুরো ড্রিলিং রিগসহ পড়ে যায়। যদিও এই দুর্ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

১৯৭১ সাল থেকে জ্বলছে আগুন! এই ভয়ঙ্কর সুন্দর অগ্নিমুখটি দেখতে প্রতিবছরই পর্যটকরা দরওয়াজা শহরে আসেন। ২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ৫০ হাজার পর্যটক স্থানটি পরিদর্শন করেছেন।

এই নরকের দরজা নিয়ে অনেক রকম রহস্য় ও মিথ রয়েছে। স্থানীয় লোকেরা একে অনেকেই দৈবশক্তির প্রকাশ বলেও মনে করেন। আসলে এটি একটি এমন সিদ্ধান্ত যা ভুল না ঠিক তা তা আজ পর্যন্ত নির্ধারণ হয়নি। তবে প্রকৃতির এই অদ্ভুত সৃষ্টি দেখতে বার বার মানুষ ছুটে যায় এই প্রাকৃতিক আশ্চর্যের সম্মুখীন হতে।

 

বিজ্ঞাপন





শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও
© ২০২১ - সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । হক কথা ২৪.নেট
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )