● মঙ্গলবার, এপ্রিল 23, 2024 | 06:55 পূর্বাহ্ন

বনী ঈসরাইলের একটি লোমহর্ষক শিক্ষণীয় ঘটনা

বনী ঈসরাইলের একটি লোমহর্ষক শিক্ষণীয় ঘটনা

”তালবিসে ইবলিশ” নামক কিতাবে রয়েছে, বনী ইসরাঈলের একজন অনেক বড় আবিদ (ইবাদত গুজার) ব্যক্তি ছিল। একদিন, একই এলাকার তিন ভাই তার নিকট উপস্থিত হয়ে বলল: আজ আমরা সফরে যাচ্ছি। আমাদের একটি বোন আছে। আমরা ফিরে না আসা পর্যন্ত আমাদের একমাত্র যুবতি বোনকে আপনার কাছে রেখে যেতে চাই। আবিদ ব্যক্তি ফিতনার ভয়ে রাজি না হলেও তাদের বারবার অনুরোধের কারণে রাজি হল এবং বললো তাকে আমি সাথে তো রাখতে পারব না, বরং পাশের নিকটবর্তী কোন বাড়িতে রেখে যান। সুতরাং, এমনই হল এবং তারা সফরে চলে গেল।

আবিদ তার ইবাদতখানার বাইরে খাবার রেখে দিত, সে মেয়ে তা নিয়ে যেত। কিন্তু শয়তান সেই আবিদের অন্তরে সহানুভূতির মাধ্যমে কূমন্ত্রণা দিল যে, “খাবার নেওয়ার সময় সেই যুবতী মেয়ে তার থেকে বেরিয়ে আসে, কখনো কোন দুষ্ট লোকের হাতে যেন না পড়ে যায়। উত্তম এটাই যে, তোমার দরজার পরিবর্তে তার দরজার বাইরে খাবার রেখে দাও। এই সৎ নিয়তের বিনিময়ে তুমি অনেক সওয়াব ও পাবে।” সুতরাং, সে তারপর থেকে যুবতি মেয়েটির দরজার সামনে খাবার রেখে দিত। কিছুদিন পর শয়তান আবারও কূমন্ত্রণা মাধ্যমে আবিদের সহানুভূতির প্রেরণা বাড়িয়ে দিল যে, “এই নিঃস্ব মেয়েটি নিশ্চুপ একা একা পড়ে থাকে। কমপক্ষে তার ভয়ভীতি দূর করার জন্য ভাল নিয়তে কথা বলতে কি গুনাহ? বরং এটা নেককাজ। তুমি তো এমনিতেই পরহেজগার ব্যক্তি এবং নফসের উপর বিজয়ী। তোমার নিয়ত ও পরিষ্কার, সে তো তোমার বোনের মতই।” সুতরাং, কথাবার্তা শুরু হল। যুবতীর সুমধুর কন্ঠ আবিদ ব্যক্তির কানে মধু বর্ষণ করল, তার অন্তরর উতাল-পাতাল ঢেউ সৃষ্টি হল। শয়তান থাকে আরো উৎসাহিত করল, এমনকি যা না হওয়ার তাও হয়ে গেল এবং যুবতী মেয়েটি অবৈধ সন্তানও প্রসব করল।

শয়তান পুনরায় কুমন্ত্রণার মাধ্যমে আবিদ ব্যক্তির মনে ভয় ঢুকিয়ে দিল, “মেয়েটির ভাইয়েরা যদি এই সন্তানকে দেখে তোমার তো অনেক বদনাম হয়ে যাবে, তোমাকে সবাই খারাপ বলবে। সুতরাং, তুমি নবজাতক সন্তান এবং তার মাকে হত্যা করে মাটিতে দাফন করে দাও। ” আবিদ ব্যক্তিটি তাই করল। মেয়েটির ভাইয়েরা যখন সফর হতে আসল, আবিদ ব্যক্তিটি মিথ্যার আশ্র‍য় নিয়ে আফসোস করে বলল: ” আপনাদের বোনের ইন্তিকাল হয়ে গেছে, এই হল আপনার মরহুমা বোনের কবর, আসুন ফাতিহা পাঠ করি। ভাইয়েরা ফাতেহা পাঠ করল এবং বেদনাগ্রস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরল। রাতে শয়তান মুসাফিরের বেশে এসে তিন ভাইকে স্বপ্নে এসে সেই আবিদের সমস্ত অসৎ কর্মের কথা খুলে বলল আর দাফনকৃত স্থান দেখিয়ে বলল: এই জায়গাটি খনন কর।

তিন ভাই মিলে জায়গাটি খনন করে তাদের বোন এবং সেই নবজাতক শিশুর লাশ দেখতে পেল। তারা বাদশাহর দরবারে গিয়ে অভিযোগ করল। আবিদ ব্যক্তিকে ইবাদতখানা থেকে বের করে ফাসিঁ দেওয়ার হুকুম হল। ফাসিঁ দিতে নিয়ে যাওয়ার সময় শয়তান সেই আবিদের সামনে আত্মপ্রকাশ করল এবং বলল: “আমাকে চিনতে পেরেছ? আমি শয়তান তোমাকে সেই মহিলার ফেতনায় ফেলেছি এবং অপমানের সর্বশেষ স্তরে পৌঁছে দিয়েছি। যাই হোক চিন্তা কর আমি তোমাকে বাঁচাতে পারব কিন্তু শর্ত হল আমার আনুগত্য কর।” যে মৃত্যুর সামনে উপস্থিত হয় বাচাঁর জন্য কি না করে! আবিদ বললো আমি তোমার প্রতিটা কথা শোনার জন্য প্রস্তুত। শয়তান বলল: “আল্লাহকে অস্বীকার কর এবং কাফির হয়ে যাও, আর আমাকে সিজদা কর।” সে আবিদ তাই করল এবং শয়তান তার ঈমান হরণ করে সাথে সাথে অদৃশ্য হয়ে গেল। এরপর, সৈন্যরা তাকে ফাসিঁ দিল এবং সে আবিদ কাফির হয়ে মৃত্যুবরণ করল!!! #নাউজুবিল্লাহ।
[সুত্র: তালবিসে ইবলিশ, ৩৮-৪০ পৃষ্ঠা]

”মলফুযাতে আলা’হযরত” কিতাবের ৪৫৪ পৃষ্টায় আলা’হযরত ইমাম আহমদ রেযা ফাযেলে বেলরভী (رضی اللہ تعالی عنه) বলেন, “যে ব্যক্তি নিজের নফসের উপর ভরসা করল, সে অনেক বড় মিথ্যাবাদীর উপর ভরসা করল”।

মহান আল্লাহ পাক রব্বুল আলামিন আমাদের সবাইকে শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে বাচাঁর এবং নেক আমল করার তৌফিক দান করুন। আমিন

এই সম্পর্কিত আরও

আবুল কালাম
বিস্তারিত...
 আরবে ঈদের তারিখ ঘোষণা
বিস্তারিত...
813788_175
বিস্তারিত...
রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান
বিস্তারিত...
জান্নাতের ফুল
বিস্তারিত...
কাজী নজরুল ইসলাম
বিস্তারিত...