● বুধবার, জুন 19, 2024 | 12:15 পূর্বাহ্ন

বসরা নগরীর যুবক

বসরা নগরীর যুবক

জগত বিখ্যাত যুবক হযরত মালেক বিন দিনার বলেন, একবার আমি এক বিরান ভূমিতে এক যুবকের সাক্ষাত পাইলাম। যুবকের চোখ হইতে অশ্রু ঝরিতেছিল এবং তাহার চেহারায় দোয়া কবুলের আলামত ছিল সুস্পষ্ট। আমি তাহাকে দেখিয়া চিনিয়া ফেলিলাম। সে বসরা নগরীর এক বিত্তশীল পরিবারের সন্তান।

যুবকের পেরেশান হাল দেখিয়া আমার চোখে পানি আসিয়া গেল এবং সেও আমাকে দেখিয়ে কাঁদিয়ে ফেলিল। কিছুক্ষণ পর অশ্রু সংবরণ করিয়া সে আমাকে ডাকিয়া বলিল-

“তুমি যখন নির্জনে মোনাজাত করিবে, তখন আমার কথাও স্মরণ করিও। আল্লাহ্ পাক হয়ত তো্মার দোয়ার বরকতে আমার গোনাহ্ও ক্ষমা কেরিয়া দিবেন।” এই কথা বলিয়াই সে অশ্রুবর্ষণ করিতে করিতে কোখায় চলিয়া গেল।

হযরত মালেক বিন দিনার বলেন, পরবর্তী হজ্বের সময় আমি দেখিতে পাইলাম, বাইতুল্লাহ শরীফের পাশে কতক লোক জড়ো হইয়া কি যেন দেখিতেছে। আমি নিকটে গিয়া দেখিতে পাইলাম, এক যুবক এমনভাবে কাঁদিতেছে যে, তাহার কাঁদা দেখার জন্য মানুস তওয়াফ ত্যাগ করিয়া এখানে আসিয়া জড়ো হইয়াছে। যুবককে দেখিয়া আমি মনে করিলাম,সে আমার পরম বন্ধু। আমি তাহাকে ছালাম দিলাম। সে আমার সালামের জবাব দিয়ে বলিল- “আল্লাহ পাকের শোকার যে, তোমার অন্তরের ভয়কে তিনি আমান ও শান্তি দ্বারা পরিবর্তন করিয়া দিয়াছেন এবং তোমার মনের সকল বাসনা পূর্ণ করিয়াছেন।” হযরত মালেক বিন দিনার বলেন, আমি যুবককে বলিলাম- “তোমার দিলের হালাত আমার নিকট বর্ণনা কর।” সে বলিল- “আল্লাহ আমার সার্বিক মঙ্গল করিয়াছেন। তিনি অনুগ্রহ করিয়া আমাকে এখানে আহবান করিয়াছেন। তাহার ডাকে এখানে আসিয়া আমি যাহা প্রার্থনা করিয়াছি তাহাই পাইয়াছি।”

হযরত মালেক বলেন, আমরা তাওয়াফ করিতে আরম্ভ করিলাম। এমন সময় সে হঠাৎ কোথায় চলিয়া গেল। পরে বহু চেষ্টা করিয়াও তাহার আর কোন সন্ধান পাওয়া গেল না।

এই সম্পর্কিত আরও

office-course
বিস্তারিত...
আবুল কালাম
বিস্তারিত...
সৌদি আরবে ঈদের তারিখ ঘোষণা
বিস্তারিত...
রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান
বিস্তারিত...
813788_175
বিস্তারিত...
জান্নাতের ফুল
বিস্তারিত...