1. yenboravisluettah@gmail.com : bimak73555 :
  2. faysalislam405@gmail.com : ফয়সাল ইসলাম : ফয়সাল ইসলাম
  3. tajul.islam.jalaly@gmail.com : তাজুল ইসলাম জালালি : তাজুল ইসলাম জালালি
  4. marufshakhawat549@gmail.com : মারুফ হোসেন : মারুফ হোসেন
  5. saddam.samad.24@gmail.com : সাদ্দাম হোসাইন : সাদ্দাম হোসাইন
  6. : :
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন

বিচার করার সুন্নাতী পদ্ধতি

সাদ্দাম হোসাইন
  • প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ৬ জুলাই, ২০২১
  • ২৯৬ বার পড়া হয়েছে
বিচার করার সুন্নাতী পদ্ধতি
বিচার করার সুন্নাতী পদ্ধতি

১। কোনো বিচার কাজে, সভায় বা মজলিসে বসলে আগে আল্লাহ পাকের জিকির দোয়া ও দরুদ শরীফ পড়ে নেওয়া। (আবু দাউদ শরীফ)

২। বিচারককে অবশ্যই ন্যায় পরায়ন, ইসলামী শরীয়তে পারদর্শী ও খোদাভীরু হতে হবে। (বোখারি শরীফ)

৩। বিচারক এমন জায়গায় বসবে যেখানে বাদী বিবাদী উভয়জন অবাধে বিচারকের নিকট আসতে পারে।

৪। দুই পক্ষের সাক্ষী নেওয়া ছাড়া বিচারের রায় না দেওয়া। (তিরমিযি শরীফ)

৫। রাগের সময় বা অন্য কোনো ব্যাপারে অন্য মনস্ক থাকাকালে বিচারের রায় না দেওয়া। (বোখারি শরীফ, মুসলিম শরীফ)

৬। বিচারক আসামীর দিকে কড়া নজরে না তাকানো।

৭। নিজের মাতব্বরি, ক্ষমতা বা সরদারীর শক্তির বলে এক জনের মাল অন্য জনকে না দেওয়া। (এমনটি করলে বিচারকের বিরুদ্ধে হাশরের ময়দানে নবীজী নিজে আল্লাহর দরবারে মামলা দায়ের করবেন।) (তালীমুদ্দি)

৮। কাউকে মসজিদে শাস্তি না দেওয়া। (তিরমিযি শরীফ)

৯। কাফের বাদী বা বিবাদী হলে বিচারক তাকে হেয় না করা। অপমান না করা। তাকে হাসির পাত্র না বানানো। কাফের বলে তার উপর বিন্দুমাত্র জুলুম না করা। (তার উপর জুলুম হলে আখিরাতে জিজ্ঞাসিত হবে।)

১০। বিচার প্রার্থীদের থেকে কোনো হাদিয়া তোহফা গ্রহণ করা যাবে না। (এটা ঘুষের শামিল) (আবু দাউদ শরীফ)।

বিচার করার সুন্নাতী পদ্ধতি

বিজ্ঞাপন




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও
Share via
Copy link
© ২০২৩- সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । হক কথা ২৪.নেট
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )
Share via
Copy link