1. yenboravisluettah@gmail.com : bimak73555 :
  2. faysalislam405@gmail.com : ফয়সাল ইসলাম : ফয়সাল ইসলাম
  3. tajul.islam.jalaly@gmail.com : তাজুল ইসলাম জালালি : তাজুল ইসলাম জালালি
  4. marufshakhawat549@gmail.com : মারুফ হোসেন : মারুফ হোসেন
  5. saddam.samad.24@gmail.com : সাদ্দাম হোসাইন : সাদ্দাম হোসাইন
  6. : :
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:১৬ পূর্বাহ্ন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে প্রথমবারের মতো আমদানি

ফারজানা আক্তার লিমা
  • প্রকাশিতঃ রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৮৪ বার পড়া হয়েছে
আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে প্রথমবারের আমদানি
আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে প্রথমবারের আমদানি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে গমের পর এবার পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার স্থলবন্দর দিয়ে প্রথমবারের মতো পেঁয়াজ আমদানি করা হয়। এতে দেশের অন্যতম বৃহত্তম আখাউড়া স্থলবন্দরে আমদানি কার্যক্রমে গতি আসতে শুরু করেছে। অপর দিকে রপ্তানিমুখী এই বন্দরে আমদানি কার্যক্রম শুরু হওয়ায় ব্যবসায়ীসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা বিরাজ করছে।

এর আগে ৮ আগস্ট আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ৩০ ট্রাকে প্রায় ৬০০ টন গম আমদানি করা হয়। বাংলাদেশে গম আমদানির বিষয়ে রাজশাহীর মেসার্স বিসমিল্লাহ ফ্লাওয়ার মিলের সঙ্গে কলকাতার মেসার্স ব্রিজ কিশোর প্রসাদের চুক্তি হয়। ভারত থেকে ১ হাজার ৩২০ টন গম আমদানির চুক্তিপত্র করেছে এই দুই ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। ভারতের উত্তর প্রদেশ থেকে মালবাহী ট্রেনে করে এসব গম ত্রিপুরার আগরতলায় আনার পর ৮ আগস্ট আখাউড়ায় পৌঁছায়।

খোঁজ নিয়ে ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালে স্থলবন্দরে শওগাত ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল নামে একটি প্রতিষ্ঠান ২৪ দশমিক ২৫০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি করে। আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শেষে রোববার দুপুরে সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট মা-মণি এন্টারপ্রাইজ আমদানি করা পেঁয়াজ ট্রাক থেকে খালাস করে। আমদানি করা পেঁয়াজ থেকে ৬৬ হাজার ৮৫৮ টাকা রাজস্ব আদায় করা হয়েছে।

বন্দরের শ্রমিক মোর্শেদ মিয়া, রাসেল মিয়াসহ কয়েকজন জানান, পণ্য আমদানি শুরু হওয়ায় তাঁরা বেশ খুশি। এতে তাঁদের কাজের সুযোগ হয়েছে। সব ধরনের পণ্য যেন এ বন্দর দিয়ে আমদানি করা যায়, সে বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তাঁরা।সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট মা-মণি এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী ইলিয়াস মিয়া জানান, বৃহস্পতিবার আসা পেঁয়াজই এ বন্দর চালু হওয়ার পর প্রথম পেঁয়াজ আমদানি। ভালো দাম পাওয়া গেলে এ বন্দর দিয়ে আরও পেঁয়াজ আমদানি করা সম্ভব হবে জানান তাঁরা।

স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জানান, বিভিন্ন পণ্য আমদানি শুরু হওয়ায় বন্দরে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। ব্যবসায়ীরা যেমন আগ্রহী হয়ে উঠেছেন, তেমনিভাবে বন্দরের শ্রমিকেরাও এখন বেশ খুশি। দেশের অন্যান্য বন্দরের মতো এই বন্দর দিয়ে যদি সব ধরনের পণ্য আমদানির অনুমোদন দেওয়া হয়, তাহলে ব্যবসায়ীরা যেমন লাভবান হবেন, তেমনি সরকারের রাজস্ব আয়ও বাড়বে।

সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোবারক হোসেন ভূঁইয়া জানান, শুঁটকি, আদা ও গমের পর এ বন্দর দিয়ে প্রথমবারের মতো পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে। সব ধরনের পণ্য আমদানির অনুমোদন পেলে বন্দরের রাজস্ব আয় আরও বাড়বে। সেই সঙ্গে ব্যবসায়ীরাও অনেক লাভবান হবেন।

১৯৯৪ সালে বন্দর হিসেবে কার্যক্রম শুরু করা আখাউড়া স্থলবন্দর মূলত রপ্তানিমুখী। এ বন্দর দিয়ে রপ্তানি হওয়া পাথর, সিমেন্ট, মাছসহ অন্যান্য পণ্য ভারতের ত্রিপুরাসহ সাতটি রাজ্যে সরবরাহ হয়। 

আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে প্রথমবারের আমদানি

বিজ্ঞাপন




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও
Share via
Copy link
© ২০২৩- সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । হক কথা ২৪.নেট
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )
Share via
Copy link