● সোমবার, জুলাই 22, 2024 | 04:08 অপরাহ্ন

হযরত আবু বকর সিদ্দীক (রা.) এর সিরিয়া অভিযান

শামী ও রোমানদের ভীতি মুক্ত হতে ১৩ হিজরী সনে হযরত আবু বকর সিদ্দীক (রা.) শাম ও ফিলিস্তিন অভিমুখে একটি সেনাদল প্রেরণের পরিকল্পনা গ্রহন করেন। তিনি এ সেনাবাহিনীকে চারটি দলে বিভক্ত করে প্রতিদলে এক এক জন পৃথক সেনাপতি নিযুক্ত করেন। তাদের প্রত্যেককে ভিন্ন ভিন্ন দিক থেকে আক্রমণের নির্দেশ দেন।

  • হযরত আবূ উবায়দা ইবনুল জাররাহ (রা.) কে হামাস এর দিক হতে
  • আমর ইবনুল আ’স (রা.) কে ফিলিস্তিনের দিক হতে
  • ইয়াজীদ ইবনে আবূ সুফিয়ান (রা.) কে দামেস্ক-এর দিক হতে এবং
  • শুরাহবীল ইবনে হাসানা (রা.) কে জর্ডানের দিক হতে আক্রমণের নির্দেশ দেন

বাহিনী তুষ্টতয় যাত্রা কালে খলীফাতুল মুসলিমীন হযরত আবু বকর সিদ্দীক (রা.) তাদের সাথে পদব্রজে কিছু দূর পথ তাশরীফ নিয়ে গেলেন এবং বিদায়কালে সেনানায়কগণকে গুরুত্বপূর্ণ উপদেশ প্রদান করেন।

উক্ত মূল্যবান উপদেশের কিছু অংশ নিম্নে প্রদত্ত হলো-

  1. সর্বাবস্থায় আল্লাহকে ভয় করবে। তিনি দৃশ্য ও অদৃশ্যকে সমভাবে দেখেন।
  2. অধীনস্থদের সাথে উত্তম ও বন্ধু সুলভ ব্যবহার করবে।
  3. যখন তাদের উপদেশ দেবে তো সংক্ষেপে করবে। কারণ, দীর্ঘ বক্তব্যের এক অংশ অপর অংশকে ভূলিয়ে দেয়।
  4. পূর্বে নিজ ভূল সংশোধন করবে। অন্যরা আপনা আপনি সংশোধিত হয়ে যাবে।
  5. বিরোধী পক্ষের দূত এলে, তাদের যথাযথ সম্মান ও কদর করবে।
  6. গোপনীয়তা রক্ষা করবে, তাহলে পরিকল্পনা নস্যাৎ হয়ে শৃংখলা বিঘ্নিত হবে না।
  7. সদা সত্য বলবে, তবে সঠিক পরামর্শ পাবে।
  8. রাতে সাথীদের সাথে বৈঠক করবে। ফলে সর্বপ্রকার খবর অবগত হতে পারবে।
  9. সেনা ছাউনীর পাহারার সুব্যবস্থা করবে। মাঝে মাঝে অতর্কিতে পাহারাদারী পরিদর্শন করবে।
  10. মিথ্যাবাদীর সাহচর্য পরিত্যাগ করে সত্যবাদীর সাহচর্য গ্রহন করবে।
  11. যাদের সাথে মেলামেশা করবে আন্তরিকতা ও এখলাসের সাথে মিলবে। কাপুরুষতা ও খেয়ানত থেকে আত্মরক্ষা করবে।
  12. কিছু সংখ্যক দুনিয়াত্যাগী লোককে আপন উপাসনালয়ে অবস্থানরত দেখতে পাবে। কখনো তাদের বিরক্ত করবে না এবং তাদেরকে আপন অবস্থায় চলতে দিবে।

এরপর ইসলামী বাহিনীর চার সেনা প্রধান নিজ নিজ বাহিনী নিয়ে শাম অভিমুখে রওয়ানা হলেন। হযরত আবূ উবায়দা ইবনুল জাররাহ (রা.) জাবিয়ায়, হযরত ইয়াজীদ ইবনে আবূ সুফিয়ান (রা.) বলাকায়, শুরাহবীল ইবনে হাসানা (রা.) বসরায় এবং আমর ইবনুল আ’স (রা.) আরবায় পৌছে নিজ নিজ মোর্চা স্থাপন করেন। শামীয় ও রোমানরা যখন বুঝতে পারলো যে, মুসলমানগন চারিদিক থেকে তাদের দেশ ঘিরে ফেলেছে তখন ভীষন উদ্বিগ্ন হয়ে তারা নিজ দেশের শাহেন শাহ রোমের কায়সার হিরাক্লিয়াসের নিকট সাহায্য প্রার্থনা করল।

সুত্রঃ খেলাফতে রাশেদা। কাজী জয়নাল আবেদীন মিরাঠী

হিরাক্লিয়াসের পরামর্শ। আসছে…

এই সম্পর্কিত আরও

কাবার চাবি
বিস্তারিত...
হজ-2025
বিস্তারিত...
খিলাফত
বিস্তারিত...
office-course
বিস্তারিত...
আবুল কালাম
বিস্তারিত...
সৌদি আরবে ঈদের তারিখ ঘোষণা
বিস্তারিত...